এবার মিয়ানমার থেকে রোহিঙ্গাদের পর আসছে বৌদ্ধরা

রোহিঙ্গাদের পরে এবার মিয়ানমার থেকে সাধারণ বৌদ্ধ ও উপজাতিদের তাড়িয়ে দেয়া হচ্ছে। তাদের মধ্যে অল্পসংখ্যক বাংলাদেশে প্রবেশও করেছে। কয়েকজনকে সীমান্ত থেকে ফেরত পাঠানো হয়েছে। রাখাইনে নতুন করে অস্থিতিশীল হওয়ায় আরও বড় ধরনের অনুপ্রবেশ ঘটার আশঙ্কা করছে বাংলাদেশ।

উদ্ভূত পরিস্থিতিতে মঙ্গলবার ঢাকাস্থ মিয়ানমারের রাষ্ট্রদূত উ লুইন ও কে জরুরি তলব করা হয় এবং ঢাকার পক্ষ থেকে অবৈধ অনুপ্রবেশ চেষ্টার কড়া প্রতিবাদ জানানো হয়।

মিয়ানমারের রাষ্ট্রদূতকে বলা হয়, গত দেড় বছরে বাংলাদেশের শত চেষ্টা স্বত্বেও একজন রোহিঙ্গাকে ফেরত নেয়নি মিয়ানমার। এ অবস্থায় নতুন করে পরিকল্পিতভাবে রাখাইন অস্থিতিশীল করে দলে দলে বুদ্ধিস্ট এবং উপজাতিদের বাংলাদেশ সীমান্তের দিকে ঠেলে দেয়া হচ্ছে। এমন পরিকল্পিত ষড়যন্ত্র বন্ধ করতে এখনই ব্যবস্থা নেয়ার জন্য দেশটির কর্তৃপক্ষের প্রতি আহবান জানায় বাংলাদেশ।

কূটনৈতিক সূত্র বলছে, পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়া অনু বিভাগের মহাপরিচালক মো. দেলোয়ার হোসেন রাষ্ট্রদূতের সঙ্গে কথা বলেন এবং ঢাকার বার্তা তার সরকারের প্রতি পৌঁছানোর অনুরোধ জানান।

একইসঙ্গে বলা হয়, বাংলাদেশে আশ্রয় নেয়া রোহিঙ্গাদের রাখাইনে ফেরার অনুকূল পরিবশে নিশ্চিত করতে আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের আহবান মিয়ানমারকে পূরণ করতে হবে, অন্যথায় যেকোনো অস্থিতিশীল পরিস্থিতির জন্য মিয়ানমারকেই দায় নিতে হবে।

গত ৪ জানুয়ারি এক প্রতিবেদনে বিবিসি বাংলা জানায়, রাখাইনে বৌদ্ধ বিদ্রোহীদের হামলা এবং নিরাপত্তা বাহিনীর সাতজন নিহত হয়।

প্রতিবেদনে বলা হয়, মিয়ানমারের স্বাধীনতা দিবসে রাখাইনে বৌদ্ধ বিদ্রোহীরা চারটি পুলিশ পোস্টে হামলা চালায়। এ হামলায় দেশটির নিরাপত্তা বাহিনীর সাত সদস্য নিহত হন।

এর আগে ২০১৭ সালে এই রাখাইনে ভয়াবহ সেনা অভিযানের মুখে লাখ লাখ রোহিঙ্গা মুসলিম দেশ ছেড়ে বাংলাদেশে এসে আশ্রয় নেয়।

You might also like

Leave A Reply

Your email address will not be published.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.