ক্ষেপণাস্ত্র উৎপাদনে শীর্ষ দেশগুলোর সারিতে ইরান: হাতামি

বিগত ৪০ বছরের তীব্র আন্তর্জাতিক চাপ ও নিষেধাজ্ঞা উপেক্ষা করে ইরান বিশ্বের অন্যতম শীর্ষ ক্ষেপণাস্ত্র উৎপাদনকারী দেশে পরিণত হয়েছে বলে মন্তব্য করেছেন দেশটির প্রতিরক্ষামন্ত্রী আমির হাতামি।

২ ডিসেম্বর, রবিবার ইসলামিক রিপাবলিক নিউজ এজেন্সিকে (ইরনা) দেওয়া এক বিশেষ সাক্ষাৎকারে তিনি এ মন্তব্য করেন।

আমির হাতামি বলেন, ‘ইরান বর্তমানে ক্ষেপণাস্ত্র, রাডার, সাঁজোয়া যান ও ড্রোন নির্মাণের ক্ষেত্রে বিশ্বের শীর্ষস্থানীয় দেশগুলোর কাতারে অন্তর্ভুক্ত হয়েছে।’ পার্স টুডের এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়।

হাতামি আরও বলেন, ‘ইসলামি বিপ্লবের পর বিগত চার দশকের কঠোর নিষেধাজ্ঞা উপেক্ষা করে তার দেশ সমরাস্ত্রের দিক দিয়ে স্বয়ংসম্পূর্ণতা অর্জন করেছে।’

এর আগে গত আগস্টে ইরান প্রথমবারের মতো দেশে তৈরি প্রথম যুদ্ধ বিমান বিশ্বের সামনে আনে। এটি হচ্ছে চতুর্থ প্রজন্মের একটি যুদ্ধ বিমান। বিমানটি শত ভাগ দেশীয় প্রযুক্তিতে তৈরি বলে ইরান জানায়। হাতামি এ বিষয়ে জানান, নভেম্বর মাসে ইরানের দেশীয় প্রযুক্তিতে বানানো ‘কাওসার’ যুদ্ধ বিমানের যে উৎপাদন শুরু হয়েছে তা প্রমাণ করে ইরানের ওপর আন্তর্জাতিক নিষেধাজ্ঞা অকার্যকর।

২৬ নভেম্বর ইরানের বিমান শিল্প সংস্থা (আইএআইও) প্রধান ব্রিগেডিয়ার জেনারেল আবদুল করিম বানতারাফি বিমান প্রদর্শনী উদ্বোধনের পর জানান, ইরান প্রশিক্ষণ বিমানও রপ্তানি করবে। তিনি বলেন, ‘কাওসার নামের নতুন একটি যুদ্ধ বিমান রপ্তানির জন্য ইতোমধ্যে রাশিয়া, চীন ও ইন্দোনেশিয়ার সঙ্গে চুক্তিও সই হয়েছে।’

You might also like

Leave A Reply

Your email address will not be published.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.