ফ্যাশন এবং সুরক্ষায় সানগ্লাস

মডেল – আর্নিরা চৌধুরী, ছবিঃ শরীফুল ইসলাম

বাংলাদেশ টাইমসঃ সানগ্লাস কেন পড়বেন এমন প্রশ্নের উত্তরে অনেকের চিন্তায় প্রথমে আসে ফ্যাশন। অবশ্যই সানগ্লাস ফ্যাশনের একটি বড় অংশ জুড়ে আছে। বলা যেতে পারে সানগ্লাস পৃথিবীর সকল দেশে ও সমাজে “কমন ফ্যাশন” হিসেবে গণ্য করা হয়। তবে ফ্যাশনের চাইতে এর স্বাস্থ্যগত দিকটি অধিকতর গুরুত্বপূর্ণ। ফ্যাসন ছাড়াও পাঁচটি কারণে আমাদের সানগ্লাস ব্যাবহার করা উচিত।

১। অতি বেগুনী রশ্মি থেকে চোখের সুরক্ষা ।

সূর্যের অতি বেগুনী রশ্মির কারণে চোখে ছানি পড়া রোগ হতে পারে। তাছাড়াও “ফটোকেরাটাইটিস” নামে এক ধরণের রোগ হয় যাকে “স্নো ব্লাইডনেস” ও বলা হয়। প্রখর রোদে খালি চোখে কয়েক ঘণ্টা কাজ করলে চোখের কর্নিয়া এবং কঞ্জাংটিভাতে সানবার্ন হয় । তখন চোখে ব্যাথা করে , চোখ দিয়ে অনবরত পানি ঝরে । এই রোগে আক্রান্ত ব্যক্তি প্রখর রোদে চোখে প্রচন্ড জ্বালা পোড়া শুরু হয়। যদি কারো এই রোগ দেখা দেয় তখন শুধু সানগ্লাস ব্যবহার না করে গগলস ব্যবহারের পরামর্শ দেয়া হয় । তাই যারা অনেকক্ষন রোদের মধ্যে থেকে কাজ করেন এই রোগ থেকে বাঁচার জন্য হয়তো বড় টুপি বা হ্যাট পড়ে ক্ষতিকারক সূর্যের ৫০% অতিরিক্ত বেগুনী রশ্মির বিকিরণ থেকে চোখকে রক্ষা করবেন ভাবছেন কিন্তু তা যথার্থ নয়। তাদের জন্য সানগ্লাসই হচ্ছে সবচেয়ে উপযোগী ।

 ২। নীল রশ্মি থেকে চোখের সুরক্ষা ।

দীর্ঘকালীন সূর্যের অতি নীল ও বেগুনী রশ্মির সংস্পর্শে আসার ফলে “ম্যাকুলার ডিজেনারেশন” এর আশংকা বেড়ে যায়। বিশেষ করে রোদে যাদের চোখ খুবই সংবেদনশীল তাদের অবশ্যই সানগ্লাস পরা উচিত।

মডেল – আর্নিরা চৌধুরী, ছবিঃ শরীফুল ইসলাম

৩। আরামদায়ক দৃষ্টির জন্য সানগ্লাস জরুরী ।

সূর্যের প্রখরতার কারণে কোন কিছু পরিস্কার করে দেখতে সমস্যা হয়। তখন আমরা আড়চোখে দেখি এবং চোখ ভিজে যায়। সানগ্লাস পরলে আমাদের এই সমস্যা থাকে না।

৪। অন্ধকার মানিয়ে নিতে সমস্যা  

দুই থেকে তিন ঘন্টা প্রখর রোদে কাটানোর পরে রাতে অথবা ঘরের আলোর সাথে চোখকে মানিয়ে নিতে সমস্যা হয়। সেক্ষেত্রে সানগ্লাসের কোন বিকল্প নেই।

৫। ক্যানসার প্রতিরোধে সানগ্লাস ।

রোদের কারণে চোখের পাতা ও চোখের আশেপাশে ক্যানসার হতে পারে। তাই ক্যানসার প্রতিরোধের জন্য সকলের সানগ্লাস পড়া উচিত।

মডেল – আর্নিরা চৌধুরী ; ছবি – শরীফুল ইসলাম

বিডি_টাইমস/এইচ.আর

 

Leave A Reply

Your email address will not be published.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.