নিয়মিত ডুমুর খেলে কমবে ডায়াবেটিস

ডুমুর ফল

আমরা ডুমুরের ফুল না দেখা গেলেও ডুমুর ফল কম বেশি সবাই দেখেছি। ডুমুরের ফল খাবার হিসেবে অনেক জায়গায় পরিচিত। আমাদের দেশের বিভিন্ন অঞ্চল, যেমন রাজশাহী চাঁপাইনবাবগঞ্জ, পার্বত্য এলাকার খাগড়াছড়ি ও রাঙামাটি, সিলেটের মৌলভীবাজার ও টাঙ্গাইলে ডুমুর তুলনামূলক বেশি জন্মে। এছাড়াও দেশের অন্য এলাকাতেও ডুমুরের গাছ দেখা যায়। কাঁচা ডুমুর ফল অতি উন্নত সবজি।

ডুমুর খাবার নিয়মঃ শুধু ডুমুর বা অন্যান্য সবজির সাথে ডুমুরভাজি অথবা এর ভর্তা খুবই উপাদেয়। এ ছাড়া ছোট মাছের সঙ্গে ডুমুরের ঝোলও রাঁধা হয়। আবার অন্যান্য সবজির ও ডুমুর দিয়ে সবজিও রান্না করা যায়, এবং এই সবজি খুব স্বুষাদু হয়।

ডুমুরের উপকারিতাঃ ডুমুর খুবই উচ্চমানের ভেষজ গুণসম্পন্ন উদ্ভিদ। প্রতি ১০০ গ্রাম ডুমুরে খাদ্যশক্তি ৩৭ কিলোক্যালরি, ১২৬ মাইক্রোগ্রাম ক্যারোটিনসহ ভিটামিন এ, বি, সি ও অন্যান্য উপাদান রয়েছে।যাদের ডায়াবেটিস আছে তাদের জন্য এটি খুবই উপকার। নিয়মিত ডুমুর খেলে ডায়াবেটিস খুব সহজে নিয়ন্ত্রনে আনা যায়।এছাড়াও গুটিবসন্ত, ডায়াবেটিস, হৃদ্‌রোগ, কিডনি ও মূত্রসংক্রান্ত সমস্যা, স্নায়বিক দুর্বলতা, মস্তিষ্কের শক্তিবৃদ্ধি, ইত্যাদি রোগের জন্য ডুমুর উপকারি।এ ছাড়া পরিপাকতন্ত্র ভালো রাখার পাশাপাশি হাড় মজবুত রাখে।

ডুমুরে প্রচুর অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট রয়েছে। এটি ফ্রি র‍্যাডিকেলস নষ্ট করেদেয়, যার ফলে হৃদ্‌রোগের ঝুঁকি কমে। শুকনো ডুমুর ফল রক্তের ট্রাইগ্লিসারিডসকে কমায়। ডুমুরে থাকা প্রচুর পরিমাণে আয়রন আমাদের শরীরের হিমোগ্লোবিনের পরিমাণকে স্বাভাবিক রাখে।

বাংলাদেশ/টাইমস

Leave A Reply

Your email address will not be published.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.