করোনা সংক্রমণ এড়াতে বরিশাল থেকে লঞ্চ, ফেরি ও বাস চলাচল বন্ধ

করোনা ভাইরাসের প্রাদুর্ভাব ঠেকাতে পাটুরিয়া-দৌলতদিয়া নৌরুটে ফেরি ও লঞ্চ চলাচল বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে। মঙ্গলবার দুপুর সাড়ে ১২ টায় নৌপথের সব ধরণের নৌযান চলাচল বন্ধ রাখার ঘোষণা দেয় বিআইডব্লিউটিসি কর্তৃপক্ষ। পাটুরিয়া ও দৌলতদিয়া ঘাট এলাকায় অপেক্ষমাণ যানবাহনগুলিকে বিশেষ ব্যবস্থায় পার করা হচ্ছে বলে জানান সংস্থাটির আরিচা কার্যালয়ের বাণিজ্য বিভাগের সহকারী ব্যবস্থাপক মহীউদ্দীন রাসেল।

তিনি জানান, করোনা ভাইরাস প্রতিরোধ জনিত কারণে সরকারি নির্দেশনায় গত (মঙ্গলবার) দুপুর সাড়ে ১২ টায় নৌপথের সকল ধরণের নৌযান চলাচল বন্ধ রাখার ঘোষণা দেয় বিআইডব্লিউটিসি কর্তৃপক্ষ। পরবর্তী নির্দেশনা না পাওয়া পর্যন্ত ফেরিঘাট এলাকা লক ডাউন থাকবে বলে জানান তিনি। করোনা ভাইরাস সংক্রামণ এড়াতে বরিশাল থেকে সারাদেশের সব রুটে যাত্রীবাহী লঞ্চ ও বাস চলাচল বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে। বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌ-পরিবহন কর্তৃপক্ষ (বিআইডব্লিউটিএ) এবং বরিশাল জেলা বাস মালিক গ্রুপে পক্ষ থেকে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

মঙ্গলবার দুপুর ১২টায় লঞ্চ বন্ধের বিষয়টি বরিশাল বন্দর কর্মকর্তা আজমল হুদা মিঠু সরকার নিশ্চিত করেছেন। লঞ্চ মালিকরা জানিয়েছেন, বরিশাল থেকে ঢাকাগামী লঞ্চগুলো কেবিনের অগ্রিম বুকিং বাতিল করা হয়েছে এবং বরিশাল নদী বন্দর থেকে লঞ্চগুলো কীর্তনখোলা নদীর অপর প্রান্তসহ নিজস্ব ডকে নিয়ে রাখা হয়েছে। এদিকে এ ঘটনায় বিপাকে পড়লেও যাত্রীরা এমন উদ্যোগকে স্বাগত জানিয়েছেন। অপরদিকে গত মঙ্গলবার দুপুর ২টা থেকে স্থানীয় ও দূরপাল্লার সব রুটের বাস চলাচল বন্ধ করা হয়েছে। বরিশাল জেলা বাস মালিক গ্রুপের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক কিশোর কুমার দে জানান, জেলা প্রশাসনের মৌখিক নির্দেশে ও বিআরটিএর লিখিত আদেশে মঙ্গলবার দুপুর ২টা থেকে কেন্দ্রীয় বাস টার্মিনাল নথুল্লাবাদ থেকে দূরপাল্লা ও অভ্যন্তরীণ রুটের সবধরনের বাস চলাচল গত মঙ্গলবার দুপুর থেকে বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে। তিনি আরও বলেন, কেবলমাত্র টার্মিনালের বাহিরে যেসব বাস রয়েছে সেগুলো টার্মিনালে আসতে পারবে।

এছাড়া পরবর্তী নির্দেশ না দেওয়া পর্যন্ত বরিশাল থেকে কোনো যাত্রীবাহী বাস যাত্রী নিয়ে কোথাও যাওয়ার সুযোগ নেই । এদিকে পটুয়াখালী মিনিবাস মালিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক কাওসার হোসেন শিপন জানান, বরিশাল নগরীর রূপাতলী থেকে অভ্যন্তরীণ ও দূরপাল্লার রুটের বাস চলাচল বন্ধ করে দেওয়ার ঘোষণা দেওয়া হয়েছে। সকাল থেকে চলাচল করায় এখনো কিছু বাস জেলার বাহিরে থাকায় সন্ধ্যার মধ্যে বাসগুলোকে টার্মিনালে ফিরতে বলা হয়েছে। এরপর আগামীকাল বুধবার সকাল থেকে বাস চলাচল বন্ধ ঘোষণা করা হবে। জেলা প্রশাসক এসএম অজিয়র রহমান জানান, সার্বিক দিক বিবেচনা করে বাস ও লঞ্চ চলাচল বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

Leave A Reply

Your email address will not be published.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.