জেলার খবর

তন্ত্রমন্ত্র শেখানোর নামে ৩ শিশুকে পালাক্রমে ধর্ষণ!

গাইবান্ধার সুন্দরগঞ্জে প্যারালাইষ্ট রোগীকে ঝাড়-ফুক ও মন্ত্রতন্ত্র দিয়ে সুস্থ করার নামে পালাক্রমে তিন শিশুকে ধর্ষণ করেছে এক তান্ত্রিক ও কবিরাজ। ওই তিন শিশু ধর্ষণের অভিযোগে পুলিশ এই ভণ্ড তান্ত্রিককে গ্রেপ্তার করেছে। শুক্রবার রাতে উপজেলার শ্রীপুর ইউনিয়নের ধর্মপুর গ্রামে অভিযান চালিয়ে ওই ভণ্ড কবিরাজকে নিজ বাড়ি থেকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। গ্রেপ্তার ফারুক হোসেন ওই গ্রামের মৃত আব্দুল কাদের মিয়ার ছেলে।

পুলিশ জানায়, উপজেলার ধর্মপুর গ্রামের বাসিন্দা তান্ত্রিক ফারুক হোসেন দীর্ঘদিন যাবৎ ঝাড়-ফুক দিয়ে অসুস্থ রোগীকে সুস্থ করার নামে প্রতারণা করে আসছে। ওই কবিরাজ ক্যান্সার, বিকলাঙ্গ, প্যারালাইস্ট, জ্বীন ভুতের আছর থেকে মুক্তি দেওয়ার কথা বলে তন্ত্রমন্ত্র ও ঝাড়ফুকে কবিরাজির ব্যবসা করে আসছিলেন। তার বাড়িতে নিয়মিত চলত এমন ভণ্ডামি আর প্রতারণা। তার কথা অনুযায়ী জ্বীন ভুত ছাড়াতে গেলে মেয়ে শিশুর দরকার হয়। আর এমন মন্ত্র শেখানের নামে দীর্ঘদিন ধরে শিশুদের ধর্ষণ করতেন ফারুক হোসেন।

কঞ্চিবাড়ি ইউনিয়েনের প্যারালাইস্ট রোগী আতাউর রহমাকে সুস্থ করে তুলতে মোটা অঙ্কের টাকার চুক্তি করেন এই কবিরাজ। সেই চুক্তি অনুযায়ী গত ১৮ জুন তান্ত্রিক কবিরাজ ফারুক কৌশলে ওই গ্রামের তিনজন ১০,১১ ও ১৩ বছর বয়সী তিন শিশু মেয়েকে নিয়ে তন্ত্রমন্ত্র শেখার কথা বলে ওই বাড়িতে ডেকে নিয়ে যায়। একটি গোপন ঘরে ওই শিশুদের মন্ত্র শেখানোর নামে ধর্ষণ করতেন। এভাবে সারাদিন ও গভীর রাত পর্যন্ত রোগ ভালো করার নামে তন্ত্রমন্ত্র ও ঝাড়ফুক চালাতেন এই ভন্ড তান্ত্রিক।

গত ১৭ জুন সে প্রথমে ১৩ বছরের শিশুকে পাশে নির্জন জায়গায় নিয়ে ধর্ষণ করে। এভাবে পরপর ১৯ জুন পর্যন্ত তিন শিশুকে ধর্ষণ করে ওই কবিরাজ। ধর্ষণের পর তাদের বলেন জ্বীন তোদের পছন্দ করেছে। যা হয়েছে তা কাউকে বলা যাবে না। ঘটনা ফাঁস করলে নাক-মুখ দিয়ে রক্ত পড়ে মৃত্যু হবে। কিন্তু গত ১৯ জুন রাতে ১০ বছরের শিশুটি অসুস্থ হয়ে পড়ে। তার বাবা মাকে ডেকে নিয়ে আসা হলে তিন জনকে ধর্ষণের ঘটনা ফাঁস হয়ে যায়। একে একে তান্ত্রিকের সকল কর্মকাণ্ড বেরিয়ে আসে। অবস্থা বেগতিক দেখে ওই তান্ত্রিক পালিয়ে যায়।

এ ঘটনায় ধর্ষিতার পিতা ফকর উদ্দিন বাদী হয়ে সুন্দরগঞ্জ থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন আইনে মামলা দায়ের করলে পুলিশ শুক্রবার রাতে তাকে গ্রেপ্তার করে। গ্রেপ্তার ভণ্ড তান্ত্রিককে প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদ শেষে আদালতের মাধ্যমে জেলহাজতে পাঠানো হয়েছে।

বিষয়টি নিশ্চিত করে সুন্দরগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আব্দুল্লাহিল জামান বলেন, বিভিন্ন তন্ত্রমন্ত্র শেখানোর কথা বলে তিন শিশুকে ধর্ষণের অভিযোগে ওই ভণ্ড কবিরাজকে গ্রেপ্তার করা হয়। তাকে প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদ শেষে আদালতের মাধ্যমে জেল হাজতে পাঠানো হয়েছে।

এই বিভাগের আরও খবর

নতুনধারার একই মঞ্চে পর পর দুটি সম্মাননা পেলেন সাংবাদিক তৌফিক অপু

নারায়ণগঞ্জ থেকে পালিয়ে গোপালগঞ্জে গিয়ে করোনায় আক্রান্ত

একদিনে সর্বোচ্চ মৃত্যুর রেকর্ড