জাতীয়

লকডাউন নিয়ে লুকোচুরি খেলছেন শিল্প মালিকরা : মেয়র নাছির

নিয়ম নীতির তোয়াক্কা না করে অবাধে লোকজন ভেতরে ঢুকছে এবং বাইরে বের হচ্ছে চট্টগ্রামের প্রথম রেডজোন হিসেবে পরীক্ষামূলকভাবে লকডাউনে থাকা ১০ নম্বর উত্তর কাট্টলী ওয়ার্ডে। লকডাউন চলাকালীন সময়ে কিছু কিছু শিল্পপ্রতিষ্ঠান চালু রাখার অভিযোগ তুলেছেন খোদ সিটি মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দিন।

এর আগে বুধবার লকডাউনের প্রথম প্রহরেই সব বিধি ভেঙে হাজার হাজার গার্মেন্টস কর্মীর রেডজোন এলাকায় প্রবেশ করা নিয়ে সরেজমিন সংবাদ প্রকাশ করে জাগো নিউজ।

মেয়র নাছির বলেন, ‘শ্রমিকদেরকে কর্মস্থলে উপস্থিত হওয়ার জন্য চাপ প্রয়োগ করা হচ্ছে। শ্রমিকদেরকে চাকরিচ্যুত, বেতন বঞ্চিত করার হুমকি দেয়া হচ্ছে। এতে চাপে থাকা শ্রমিকরা বাধ্য হয়ে কাজে যোগদান করছে।’

মেয়র বলেন, ‘শিল্পপ্রতিষ্ঠান মালিকরা আমাদেরকে বলছেন এক কথা আর বাস্তবে করছেন উল্টোটা। তারা লকডাউনে লুকোচুরি খেলছেন। এটি বন্ধ করা হবে।’

শনিবার (২০ জুন) লকডাউন কার্যকরের চতুর্থ দিনে উত্তর কাট্টলী এলাকার পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণে গিয়ে মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীন এসব কথা বলেন। এ সময় মেয়র বিভিন্ন এলাকা পরিদর্শন করে ঘোরাঘুরি করা এলাকাবাসীকে করোনা প্রতিরোধে সচেতনতামূলক নির্দেশনা দেন। এ সময় মেয়র এলাকায় লকডাউন শতভাগ বাস্তবায়ন না হবার জন্য অপরাজনীতিকেও দায়ী করেন।

মেয়র বলেন, উত্তর কাট্টলী ওয়ার্ড এলাকার ছয় হাজার পরিবারকে খাদ্যসহায়তা প্রদানের লক্ষ্য নির্ধারণ করা হয়েছে। লকডাউনের প্রথম দিনই দুই হাজার পরিবারের জন্য প্রধানমন্ত্রীর উপহার সামগ্রী পাঠানো হয়েছে। স্থানীয় কাউন্সিলর গত দুইদিনে প্রায় সাড়ে চারশ পরিবারে এ সহায়তা বিতরণ করেছেন।

এই বিভাগের আরও খবর

বাবা দিবসে করোনা আক্রান্ত বাবাকে ডাস্টবিনে ফেলে দিল সন্তানরা

নিবিড় পর্যবেক্ষণে সাহারা খাতুন

বাণিজ্যমন্ত্রী করোনায় আক্রান্ত